বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ১০:৫৯ অপরাহ্ন

সিএনজি থেকে চাঁদা না পেয়ে থানায় শ্রমিকদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দায়েরঃ প্রত্যাহারের দাবি

Reporter Name
  • প্রকাশিত : শনিবার, ৫ জুন, ২০২১
  • ২ বার পড়া হয়েছে

মহেশখালী প্রতিনিধি:

মহেশখালীর শ্রমিক ইউনিয়ন মহেশখালী সড়কে চলাচলরত সিএনজি ড্রাইভার কালারমারছড়া ইউনিয়নের ঝাপুয়া গ্রামের গিয়াস উদ্দিন সিএনজি শ্রমিক ও মালিক সমিতি থেকে মাসোহারা চাঁদা নিয়ে প্রতিনিয়ত চালক ও মালিকের সাথে ঝগড়া বিবাদ করে আসছে।

এতে ঐ সড়কে চলাচলরত সিএনজি চালকেরা তার কারণে অতিষ্ট হয়ে উঠেছে দীর্ঘদিন ধরে। সর্বশেষ গত ৩ জুন দুপুরে গিয়াস উদ্দিনের নেতৃত্বে কয়েকজন উশৃঙ্খল লোক মহেশখালী ব্রীজের পূর্বপ্রান্তে বদরখালী ফেরীঘাট সিএনজি স্টেশনে এসে চালক ও মালিকদেরকে গালিগালাজ শুরু করেন। এবং চাঁদা না দিলে গাড়ী আটকিয়ে দেওয়ার হুমকি দমকি দেন।

এ নিয়ে উভয়ের মধ্যেই এক প্রকার তর্কাতর্কি শুরু হয়। উপস্থিতি লোকজনের হস্তক্ষেপে গিয়াস উদ্দিন তার লোকজন নিয়ে চলে যায়। ঐ দিন বিকালে একটি মিথ্যা ঘটনা সাজিয়ে ৬ জনের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। এঘটনা সিএনজি চালক ও মালিকদের মধ্য জানাজানি হলে দেখা দেয় বিভিন্ন মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

মহেশখালী শ্রমিক ইউনিয়নের লাইন্সম্যান সরওয়ার ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান,কালারমার ছড়া ইউনিয়নের ড্রাইভার গিয়াস উদ্দিন মালিক ও শ্রমিক ইউনিয়নের দায়িত্বশীল কেউ নন। কিন্তু উক্ত গিয়াস উদ্দিন প্রায় সময় শ্রমিক ইউনিয়ন ও মালিক সমিতি থেকে প্রায় সময় মাসিক চাঁদা দাবি করতেন। এ চাঁদা না দেওয়ায় প্রতিনিয়ত সড়ককে চলাচলরত যানবাহনের উপর হামলা চালিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতেন। এ বিশৃঙ্খলা থেকে রেহায় পেতে শ্রমিক ইউনিয়ন ও মালিক সমিতি থেকে তাকে কিছু চাঁদা দিতেন। কিন্তু করোনা মহামারীতে যাত্রী সাধারণের চলাচল কমে যাওয়ায় গত ৩মাস ধরে তাকে চাঁদা দেওয়া বন্ধ করে দেন। এই চাঁদা বন্ধ করে দেওয়ায় উক্ত চাঁদাবাজ গিয়াস উদ্দিন কয়েকজন চালককে নিয়ে গত ৩জুন বদরখালী সিএনজি স্টেশনে এসে মালিক ও শ্রমিকদেরকে গালিগালাজ করতে থাকে।
তা নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে তর্কাতর্কির ঘটনা ঘটে।

উপস্থিতি লোকজনে হস্তক্ষেপে গিয়াস উদ্দিন তার লোকজন নিয়ে চলে গেলেও গিয়াস উদ্দিনের সহযোগী মোঃ রফিক বাদী হয়ে ঐ দিন মোঃ মনির,হেলাল উদ্দিন,সরওয়ার,মোঃ মামুন,আয়ুব আলী ও মোঃ রফিককে অভিযুক্ত করে ৬ জনের বিরুদ্ধে মহেশখালী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে।

অপর দিকে, মাতারবাড়ীর এনাম ড্রাইভার, রিদুয়ান, দেলোয়ারসহ অনেকেই জানান, অভিযোগে অভিযুক্ত ৪নং আসামী মোঃ মামুন গেল রমজানের পর থেকে মাতারবাড়ীতে লাইন্সম্যানের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ২ নং অভিযুক্ত হেলাল উদ্দিন পাশিপাশি কাকড়া ব্যবসায় যুক্ত থাকায় প্রায় সময় ঘেরে সময় দেন। সেই সুবাদে তিনি অবগত নয় বলে জানাগেছে।

৫নং অভিযুক্ত আয়ুব আলী শ্রমিক ইউনিয়ন থেকে ১বছর আগে থেকে দায়িত্ব অব্যাহতি নিয়ে চিংড়ী ঘেরে শ্রমিক হিসাবে কাজ করে আসছেন। অভিযুক্ত ৬ নং রফিকের বাড়ী মহেশখালী পৌরসভায়। তারা এ মিথ্যা ও ষড়যন্ত্র মূলক ভাবে দায়ের করা অভিযোগটি সরেজমিনে তদন্ত করে মহেশখালী থানার ওসি মোহাম্মদ আব্দুল হাই তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই জহিরকে নিরপেক্ষ তদন্তপূর্বক অভিযোগটি প্রত্যাহার করে নেওয়ার জন্য দাবি জানিয়েছেন সিএনজি চালকরা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

 

  • সম্পাদক ও প্রকাশকঃ মীর মোকাদ্দেস হোসাইন 
  • বার্তা সম্পাদকঃ এম.এ.কে রানা
 
উপকূল বার্তা ২৪.কম এ প্রকাশিত/ প্রচারিত সংবাদ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ ।
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্যমন্ত্রনালয়ের নিয়ম মেনে নিবন্ধনের আবেদন চলমান
Design And Development :: Sky Host BD